বিবাহ বিচ্ছেদে বিশ্বের শীর্ষ ধনী বেজোস-ম্যাকেনজি

15

সিঁকি শতাব্দীর সংসার। কালের বিচারে হয়তো কিছুই না। তবু মানুষের এক জীবনের অনেকটাই। এই সময়ের দাম্পত্যে যদি ঘরে আসে চারটি সন্তান, তাহলে তো কথাই নেই। কিন্তু আমাজন প্রতিষ্ঠাতা ধনকুবের জেফ বেজোস ও ম্যাকেনজি দম্পতির সংসার এতোকিছুর পরও টিকলো না।

বিচ্ছেদের এমন খবর দু’জনে একসঙ্গে বিবৃতির মাধ্যমে প্রকাশ করেছেন মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে। যার মাধ্যমে এই দম্পতির দীর্ঘ ২৫ বছরের সংসার জীবনের অবসান হচ্ছে।

বিবৃতির বরাতে এ বিষয়ে মার্কিন প্রভাবশালী সংবাদ মাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, ‘দীর্ঘদিন একসঙ্গে অনেক মধুর সময় কাটানোর পর আমরা আলাদা হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, বিবাহ বিচ্ছেদের পরও আমরা আমাদের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক টিকিয়ে রাখবো’।

বিবৃতিতে তারা আরো বলেন, বিয়ের পর থেকেই আমরা একে অপরকে সবসময় অন্যভাবে খুঁজে ফিরেছি এবং আরো গভীর, আন্তরিক ও কৃতজ্ঞচিত্তে ফিরে পেয়েছি। যদি জানতাম ২৫ বছর পর আমাদের আলাদা হয়ে যেতে হবে, তবে আমরা আবারো বিয়ে করতাম ও নিজেদের খুঁজে ফিরতাম।

বিশ্বের শীর্ষ ধনী বেজোসের বর্তমানে বয়স ৫৪ বছর এবং ম্যাকেনজির বয়স ৪৮। ৯০ দশকের শুরুর দিকে (১৯৯৩) হেজ ফান্ড ডি ই’ তে কাজ করার সময়ই তাদের পরিচয় ও প্রেমের পরিণয় থেকে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। এরপর তারা সিয়াটলে বসবাস শুরু করেন এবং প্রতিষ্ঠা করেন বহুজাতিভিত্তিক তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক ই-কমার্স সাইট আমাজন।

এদিকে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদের খবরে শেয়ার বাজারে এর নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। এদিন আমাজনের শেয়ারের দাম পড়েছে প্রায় ০.২ শতাংশ।