একুশে বইমেলা জিমনেশিয়াম চত্বরে

5

জ্ঞান ও মননের আকাক্সক্ষা পূরণে নগরীর এম এ আজিজ স্টেডিয়াম জিমনেশিয়াম চত্বরে আগামীকাল রবিবার শুরু হচ্ছে অমর একুশে বইমেলা। এবারের একুশে বইমেলা ১০ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে। প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯ টা ও ছুটির দিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে এবারের বইমেলার সহযোগিতায় থাকবে চট্টগ্রাম সৃজনশীল প্রকাশক পরিষদ, চট্টগ্রামের নাগরিক সমাজ, মুক্তিযোদ্ধা, লেখক, সংবাদিক, শিক্ষাবিদ ও সাহিত্য-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। আগামীকাল রবিবার বিকেল ৩টায় বইমেলার উদ্বোধন করবেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি। গতকাল শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে বইমেলার এসব তথ্য জানান সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। সংবাদ সম্মেলনে সিটি মেয়র আরো বলেন, এবারের মেলায় ঢাকার ৬৫ এবং চট্টগ্রামের ৫৫ প্রকাশক অংশ নিচ্ছে। যারা অংশ নিচ্ছে তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল অনন্যা, অন্য প্রকাশক, অনুপম প্রকাশনী, আগামী প্রকাশনী, আহমদ পাবলিসিং, কাকলী, প্রথমা প্রকাশনী, সমর প্রকাশক, গ্রন্থ কুঠির, কালধারা প্রকাশনী, বলাকা প্রকাশন(২), শৈলী প্রকাশন, অক্ষরবৃত্ত, দি ইউভার্সিটি প্রেস লি.(২), অ্যাডর্ন পাবলিকেশন, খড়ি মাটি, বাংলাদেশ মুক্তিসংগ্রাম ও মুক্তিযোদ্ধা গবেষণা ট্রাস্ট ইত্যাদি। । ৯ম পৃষ্ঠার ৭ম ক.

ঢাকার আঙ্গিকে বই মেলা করার জন্য চট্টগ্রাম সৃজনশীল প্রকাশক পরিষদ এবং চট্টগ্রামের নাগরিক সমাজ, লেখক, সাংবাদিক, শিক্ষাবিদ ও সাহিত্য সাংস্কৃতিক সংগঠনের মতামত নেন। যার প্রেক্ষিতে মেলা প্রাঙ্গণ প্রায় ৮০ হাজার ৩০০ বর্গ ফুট, স্টল প্রস্তুত করা হয়েছে ১১০টি। এর মধ্যে ঢাকার প্রকাশক (৫টি ডাবলসহ) ৬৫টি এবং চট্টগ্রামে (৫টি ডবল সহ) ৫৫টি স্টল বরাদ্দ রাখা হয়েছে। মেলাকে আকর্ষণীয় করার লক্ষ্যে সঙ্গীতানুষ্ঠান, রবীন্দ্র ও নজরুল উৎসব, বসন্ত বরণ উৎসব, ভালোবাসা দিবস, রম্য বির্তক, পাঠক সমাবেশ, সাহিত্য আড্ডা, বির্তক-সাহিত্য-ইতিহাস-ঐতিহ্য ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা থাকবে। রবীন্দ্র-নজরুল-লোক সংগীত, সাধারণ নৃত্য, লোক নৃত্য, আবৃত্তি, হামদ-নাদ, উপস্থিত বক্তৃতা, দেশের গান, চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতা রয়েছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন একুশে বই মেলা পরিচালনা পরিষদের আহ্বায়ক ও কাউন্সিলর নাজমুল হক ডিউক, সৃজনশীল প্রকাশক পরিষদের সভাপতি ও বই মেলা পরিচালনা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক মহিউদ্দিন শাহ আলম নিপু, মেলা পরিচালনা কমিটির সচিব ও চসিক প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়য়া, যুগ্ম সচিব লেখক-গবেষক জামাল উদ্দীন, কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লবসহ লেখক ও প্রকাশকগণ।